Career suggestion

ভিডিওগ্রাফি । ক্যারিয়ার সাজেশন What is Videography

যোগ্যতা: এইচ এস সি, ভিডিওগ্রাফি ও ফটোগ্রাফির ওপর বিভিন্ন কোর্স বা ডিগ্রি সুবিধা: দেশে ও দেশের বাইরে চাকরির সুযোগ।  আউটসোর্সিং এর ব্যবস্থা আয়: শিক্ষানবিশ পর্যায়ে ভিডিওগ্রাফি করে মাসে ২৫ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।

সাজেশন: গতানুগতিক চাকরির বাইরেও এমন অনেক পেশা আছে যেখানে ভালোভাবে উপার্জন ও সম্মান আদায় করা সম্ভব।  হয়তো ভিডিওগ্রাফি আপনাকে দেবে উজ্জল ভবিষ্যৎ।  হয়তো দেবে গতানুগতি পেশা থেকে অনেক ভালো সচ্ছলতা ।

ছবি যেন মানুষের মনের ভাবকে প্রকাশ করে।  অনেকে ছবি দেখে নিজের দুঃখ ভোলার চেষ্টাও করেন।  আবার আমরা অনেক সিনেমা দেখে হাসি আবার কাদিও ।  কিন্তু কখনোকি ভেবেছেন কিভাবে হচ্ছে এতো সব।  হ্যা ক্যামেরার পেছনে বেশ কিছু মানুষ সৃষ্টিশীল ও শৈল্পিক কাজ করে চলেছেন আপনাদের জন্য।  তাদেরি একজন হচ্ছেন ভিডিওগ্রাফার যার হাতে ক্যামেরাটি থাকে।

নাটক, সিনেমা বা সামাজিক অনুস্টানে কোথায় নেই ভিডিওগ্রাফার।  আবার আধুনিক সাংবাদিকতার অন্যতম উপাদান হচ্ছে ভিডিওগ্রাফি।  তবে এটা শখের বিষয়ও বটে।  যেমন- অনেকেই এখন ফেসবুক লাইফ করছেন বা নিজেই ভিডিও বানিয়ে ইউটিউবে দিচ্ছেন।

ভিডিওগ্রাফিতে দক্ষতার পাশাপাশি অবশ্যই শৈল্পিক জ্ঞান থাকতে হবে।  সিনেমা ইন্ডাট্রিজ, টেলিভিশন চ্যানেল, নিউজ এজেন্সি, বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান, এনজিওতে রয়েছে ভিডিওগ্রাফারদের ব্যাপক চাহিদা।  মনে রাখবেন আমাদের দেশের মেধাবি তরুনরা এখন ন্যসনাল জিওগ্রাফী, বিবিসি এবং ডিসকভারি সহ বিশ্বের বিভিন্ন নামিদামি প্রতিস্ঠানে কাজ করছেন।  এছাড়া দেশে বসে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

বই পড়ে, ইন্টারনেট ঘেঁটে বা অভিজ্ঞ প্রফেশনালদের থেকে শিখে নিতে পারেন ভিডিওগ্রাফির মুল মন্ত্র।  তবে পেশা হিসেবে ভিডিওগ্রাফিকে নিতে চাইলে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা থাকা জরুরি।  আমাদের দেশে ভিডিওগ্রাফি শর্ট কোর্স এর জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে।  এছাড়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভিডিওগ্রাফি ও ফটোগ্রাফির ওপর বিভিন্ন কোর্স ও ডিগ্রি চালু করেছে।  আর ক্লিকএনটেক.কম থেকে করে নিতে পারেন ডিজিটাল কোর্স।  ভিডিওগ্রাফার হতে চাইলে আপনাকে যা যা শিখতে হবে তার একটা ধারনা দিয়ে রাখছি।  বিভিন্ন ফরমেটের ক্যামেরা অপারেশন, শুটিং টেকনিক, ফ্রেমিং এন্ড কম্পোজিশন, ইনডোর-আউটডোর শুটিং, স্টুডিও লাইটিং টেকনিকস, সিকুয়েন্সে, সট সাইজসহ নানা বিষয় জানতে হবে আপনাকে ।

শিক্ষানবিশ পর্যায়ে ভিডিওগ্রাফি করে মাসে ২৫ থেকে ৩৫ হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। অভিজ্ঞতার সঙ্গে সঙ্গে ভিডিওগ্রাফারদের উপার্জনও বাড়ে।  আর নিজেকে যদি প্রমান করতে পারেন তাহলেতো আর কথাই নেই।

একটা কথা মাথায় রাখবেন ফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফি খুবি কাছাকাছি দুটি বিষয়, যেকোন একটা জানা থাকলে অন্যটা খুব সহজ।  একজন দক্ষ চিত্র নির্মাতা বা ফটোগ্রাফার হতে হলে প্রথমেই প্রয়োজন তার মেধা ও সৃজনশীলতা ? চোখের সামনে অতি ক্ষুদ্র ঘটনাও অনেক সময় ছবি বা ভিডিওচিত্রের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে, তুলতে পারে আলোরন ।  শুধু ভালো ক্যামেরা থাকলেই ভালো ক্যামেরাম্যান বা ভিডিওগ্রাফার হওয়া যায় না।  অনেক সময় নিম্নমানের ক্যামেরা দিয়েও চমৎকার ছবি তোলা যায়।

গতানুগতিক চাকরির বাইরেও এমন অনেক পেশা আছে যেখানে ভালোভাবে উপার্জন ও সম্মান আদায় করা সম্ভব। এরকমই একটি পেশা হলো ভিডিওগ্রাফি।  এখানে নিজের দক্ষতার পাশাপাশি শৈল্পিক জ্ঞানের সমন্বয়ে যে কেউ গড়তে পারো উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ। পড়াশোনা শেষ করার পর বেশির ভাগ ছাত্র-ছাত্রী গতানুগতিক পেশার পেছনেই ছুটে থাকে। এদের মধ্যে কেউ চাকরি করে প্রতিষ্ঠিত হয়, আবার কেউবা বেকারত্বের অভিশাপ নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরতে থাকে।  তাই দেখুন না ভিডিওগ্রাফিকে আপন করে নিতে পারেন কিনা।  হয়তো ভিডিওগ্রাফি আপনাকে দেবে উজ্জল ভবিশ্যত।  হয়তো দেবে গতানুগতি পেশা থেকে অনেক ভালো সচ্ছলতা ।

What's your reaction?

Excited
0
Happy
1
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0

You may also like

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Career suggestion

ডিজিটাল মার্কেটিং Digital marketing। ক্যারিয়ার সাজেশন

যোগ্যতা: তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে আগ্রহ, জানতে হবে ডেটা অ্যানালাইসিস, ইংরেজি ও ইন্টারনেট। সুবিধা: প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি বিজ্ঞাপনী ...