ড্রয়িং টিউটোরিয়াল

শিল্পে রংয়ের ছোয়া

স্যার ইসাক নিউটন প্রথম বিজ্ঞানী যে রংয়ের তত্ত্ব নিয়ে গবেষণা করেছিলেন। ১৬৭১-৭২ সালে সে রংয়ের সূত্রপাত ঘটান।

স্যার ইসাক নিউটন(১৬৪৩-১৭২৭) দি রিফর‌্যাকশন অফ লাইট থ্রো এ গ্লাস প্রিজম

এই ছোট্ট পরীক্ষাটি প্রমাণ করেছে যে রং আলো থেকে আসে। সত্যি বলতে, রং-ই আলো। বিজ্ঞানীরা রংয়ের ব্যাখ্যা নিয়ে অনুসন্ধান করেছে, অপর দিকে শিল্পীরা বিশ্লেষণ করেছে এর দর্শন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে।

প্রতিচ্ছায়াবাদ/ইঙ্গিতে চিত্রাঙ্গন ও আলো

ক্লাউড মোনেট(১৮৪০-১৯২৬) “রুয়েন ক্যাথেড্রাল ইন ফুল সানলাইট,১৮৯৩(অয়েল অন ক্যানভাস)

প্রতিচ্ছায়াবাদ চিত্রাঙ্গনের একটি নতুন কৌশল যা ঊনিশ শতকে ফ্রান্সে উদিত হয়েছিল। প্রতিচ্ছায়াবাদী শিল্পীরা সবসময়ই আলোর যে পরিবর্তন সে বিষয়ে আগ্রহী ছিলেন। বিভিন্ন রংয়ের ছোয়ায় তারা এ জিনিসটি ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করতেন। তাদের চিত্রাঙ্গনের এ কৌশল ইউজিন শেভ্রিউলকে তার বৈজ্ঞানিক গবেষণার ক্ষেত্রে অনুপ্রাণিত করতো।

প্রতিচ্ছায়াবাদ চিত্রাঙ্গনের ক্ষেত্রে শিল্পীরা পুরাতন কোনো বিষয় বস্তুর ছবি আঁকার সময় কালো ও বাদামী রং ব্যবহার করতো।

প্রতিচ্ছায়াবাদী কৌশল

ক্লাউড মোনেট(১৮৪০-১৯২৬) “রুয়েন ক্যাথেড্রাল ইন ফুল সানলাইট,১৮৯৩(ডিটেইল)

প্রতিচ্ছায়াবাদী শিল্পীরা তাদের চিত্রে আলোর দ্রুতগামী প্রভাব আনতে ছবি আঁকার চিরাচরিত নিয়মগুলো ত্যাগ করতো।

লিখেছেন: অর্ণব নাসির

অর্নব নাসির ছাত্রী (ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়)

Comment

comments

What's your reaction?

Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0

Comments are closed.

Next Article:

0 %