মাইক্রোফোন যেভাবে সেট করবেন

0

দূরত্ব
মাইক্রোফোন প্লেসমেন্টের গোল্ডেন রুল হলো- সঠিক দূরত্বে তা স্থাপন করা। সাধারণত সাউন্ড সোর্সের খুব কাছাকাছি মাইক্রোফোন সেট না করে নির্দিষ্ট দূরত্বে করলে ভাল সাউন্ড পাওয়া যায়। না হলে অনেক ধরণের নয়েজ রেকর্ড হয়।
এর লক্ষ্য হলো, মূল শব্দ এবং এমবিয়েন্ট নয়েজের মধ্যে মেলবন্ধন তৈরি করা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এমবিয়েন্টের নয়েজের থেকে মূল শব্দকেই আপনি বেশি গুরুত্ব দেবেন। আর এমনটি পেতে হলে আপনাকে এ দুটি ভাগের মধ্যে অবশ্যই সামঞ্জস্য রাখতে হবে। উদাহরণ স্বরূপ- ইন্টারভিউ লো নয়েজে সবচেয়ে ভাল হয়। তবে আপনি যদি আশপাশের শব্দ রেকর্ড করতে চান তাহলে মাইকটি মূল সাবজেক্টের থেকে কিছুটা দূরত্বে সরিয়ে আনুন।
যদি আপনি মাইক্রোফোন বক্তার বেশি কাছে নিয়ে যান তাহলে যে ধরণের সমস্যা হতে পারে-
যদি একটি ভোকাল মাইক বক্তার বেশি কাছে নিয়ে যাওয়া হয় তাহলে, আপনার রেকর্ড করা শব্দগুলো খারাপ হয়ে যাবে। এগুলো অতিরিক্ত ভারি শোনাবে। এছাড়া পপিং ও অন্যান্য নয়েজও রেকর্ড হবে।
একটি উচ্চ শব্দের স্পিকারের কাছে যদি আপনি মাইক্রোফোন সেট করেন তাহলে আপনার রেকর্ড করা শব্দে অনেক বেশি নয়েজ থাকবে। এতে শব্দের তরঙ্গ ফেটে যাবে।
চলন্ত কিছুর খুব কাছাকাছি মাইক্রোফোন সেট করা উচিৎ নয়। এতে ক্ষতি হতে পারে। যেমন-একটি ড্রামের শব্দ রেকর্ডের ক্ষেত্রে আপনি যদি মাইকটিকে ড্রামসের খুব কাছাকাছি রাখেন তাহলে ড্রামার ভুলে আপনার মাইকটিতে বাড়ি দিতে পারে। এতে ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা থাকে।

ফেজ সমস্যা
আপনি যখন একটির বেশি মাইক ব্যবহার করবেন, তখন আপনাকে শব্দের মিসিং এর বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। সাউন্ড ওয়েভ একটির সঙ্গে আরেকটি যেভাবে যুক্ত হয়, তাতে দুটি বা তার বেশি মাইক ব্যবহার করলে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। একই সোর্স থেকে দুটি মাইকের ধরা সাউন্ডের জন্য সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। যেমন- ইন্টারভিউয়ের ক্ষেত্রে, একজন ব্যাক্তি যখন কথা বলেন, তখন তার সেই ভয়েজটি পাশাপাশি থাকা দুটি মাইকের মাধ্যমে রেকর্ড হতে পারে, আর এতে ফেজিং ইফেক্ট সৃষ্টি হতে পারে।

মুক্ত চিন্তা
আপনাকে সবসময়ই নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে তেমন কিন্তু মোটেও নয়। আপনি যতক্ষণ না মাইক্রোফোনটিকে বিপদে ফেলছেন ততক্ষণ এটিকে যেভাবে প্রয়োজন ব্যবহার করতে পারেন। যেমন-লায়ালিয়ার মাইকের সাইজ ছোট হওয়ায় এটিকে এমন সব জায়গায় সেট করা যায়, যেখানে বড় মাইক সেট করা প্রায় অসম্ভব।
উদাহরণ-

গিটার অ্যামপ্লিফায়ারে মাইক খুব কাছে সেট করা যায়। এতে স্টেজের অন্য শব্দ রেকর্ড হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। আর এই অ্যামপ্লিফায়ার এমন কোন শব্দ আউটপুট দেবে না যা মাইকটিকে নষ্ট করে দিতে পারে।

স্নেয়ার ড্রাম মাইককে খুব কাছাকাছি সেট করতে হয়। তবে খেয়াল রাখতে হবে যে, এটি যেন ড্রামার অথবা অন্য কিছুর দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

Comment

comments

Comments are closed.