ইমেজ সেন্সর টাইপ

0

ফিল্ম ক্যামেরায় আপনি যেকোনো ধরনের ফিল্ম ব্যবহার করতে পারেন। ফিল্ম আপনার ছবির colours, tones এবং grains নিয়ন্ত্রণ করে। আপনি যদি মনে করেন ফিল্মের তোলা ছবি অতিরিক্ত লাল বা নীল হচ্ছে তাহলে আপনি অন্য ফিল্ম ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু ডিজিটাল ক্যামেরায় ফিল্ম ক্যামেরারই একটি অংশ, ক্যামেরা কেনা মানে হচ্ছে আপনি কোন ফিল্ম ব্যবহার করবেন তা বাছাই করে নিচ্ছেন। ফিল্মের মতন আলাদা আলাদা ইমেজ সেন্সর আলাদা আলাদা ভাবে কালার প্রদান করে, ভিন্ন সংখ্যক grain আলাদা আলাদা আলোকসক্রিয়তা এরকম আরও অনেক কিছু। এইসকল সমস্যা নির্ণয় করার একমাত্র উপায় হল ক্যামেরা থেকে তোলা কিছু ছবি ভালো করে পরীক্ষা করে নেওয়া অথবা বিশ্বস্ত কারো কাছ থেকে ক্যামেরা কেনার পূর্বে খোঁজ নেওয়া।

image-sensor-janaoajana-tu 02

১ম ছবি: এটি একটি ইমেজ সেন্সরের পিক্সেলের জুম(zoom) করা ছবি
২য় ছবি: একটি সিলিকন ওয়েফার (wafer) যা ইমেজ সেন্সর তৈরিতে ব্যাবহার হয়

প্রথমদিকে charge-coupled devices(CDS) ছিল ডিজিটাল ক্যামেরায় ব্যবহৃত একমাত্র ইমেজ সেন্সর। এগুলো প্রথম থেকেই যথেষ্ট উন্নত ছিল কারন এদের astronomical telescopes, scanner এবং video camcorders-এ ব্যাবহার করার জন্য তৈরি করা হয়। তবে বর্তমানে এর সুপ্রতিষ্ঠিত একটি বিকল্পও রয়েছে, CMOS ইমেজ সেন্সর। CCD এবং CMOS ইমেজ সেন্সর উভয়েই আলোকসক্রিয় পিক্সেলের মাধ্যমে আলো বন্দী করে। তাদের মুল পার্থক্য হচ্ছে তাদের তৈরি কৌশলে এবং তারা কিভাবে ছবি প্রসেস করে তাতে।

#CCD image sensor: CCD- এর পিক্সেলের উপর চার্জ পতিত হওয়ার পরে আলোর তথ্য নেওয়া হয়, সেখান থেকেই এর নাম করা হয় Charge-coupled device(CCD)। প্রথম সারির উপর আপতিত চার্জ সেন্সরের একটি স্থানে স্থানান্তরিত করা হয় যাকে red out register বলে। তারপর তারা আমপ্লিফিয়ারে(amplifier) চলে যায় এবং সেখান থেকে একটি এনালগ টু ডিজিটাল কনভার্টারে(analog to digital converter)। প্রথম সারির তথ্য নেয়া হয়ে গেলে red out register- এ থাকা এর চার্জ মুছে দেয়া হয়। এবং সবগুলো সারি এক ঘর করে সামনে চলে আসে। এর পর দ্বিতীয় সারির চার্জ প্রবেশ করে, এভাবে আস্তে আস্তে সবগুলো সারির চার্জের তথ্য নেয়া হয়।

#CMOS image sensor: ইমেজ সেন্সর যে ফ্যাক্টরিতে তৈরি হয় তাদের বলা হয় ওয়েফার ফাউনডৃস(wafer foundries)বা fab, সেখানে অতি ক্ষুদ্র সার্কিট এবং ডিভাইসগুল সিলিকন চিপসের উপর বসানো হয়। CCD-এর সবচেয়ে বর সমস্যা ফাউনডৃসে বিশেষ এবং অত্যন্ত ব্যায়বহুল প্রক্রিয়ায় CCD তৈরি করা হয়, যে প্রক্রিয়ায় কেবল CCD-ই তৈরি করা যায়। অন্যদিকে বর ফাউনডৃসগুলো একটি ভিন্ন প্রক্রিয়া ব্যবহার করে যাকে Complementary Metal Oxide Semiconductor(CMOS) বলে। এর সাহায্যে কম্পিউটার প্রসেসর এবং মেমরির জন্য হাজার হাজার চিপস তৈরি করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত চিপস দিয়ে তৈরি প্রসেসর উৎপাদনের জন্য CMOS পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশী প্রচলিত প্রক্রিয়া। CMOS ইমেজ সেন্সর তৈরিতে এই একই যন্ত্রপাতি এবং প্রক্রিয়া ব্যবহার করা হয়। এরফলে এর উৎপাদন ব্যায় অনেক কমে যায়, কারন একই মেশিন দিয়ে হাজার হাজার ডিভাইস তৈরি হচ্ছে। ফলে মেশিনের ব্যায় সব ডিভাইসের মধ্যে ভাগ হয়ে যাচ্ছে। এর জন্য CCD অপেক্ষা CMOS-এর দাম অনেক কম পড়ে। আবার CMOS ইমেজ সেন্সরে প্রসেসিং সার্কিট একই চিপের মধ্যে থাকে কিন্তু CCD-এর ক্ষেত্রে প্রসেসিং সার্কিট অবশ্যই আলাদা চিপে থাকতে হয়।

দুইটি ইমেজ সেন্সরের মধ্যে পার্থক্য থাকলেও তারা উভয়ই যথেষ্ট ভালো ফলাফল দেয় এবং উভয় সেন্সরই শীর্ষ স্থানীয় ক্যামেরা কোম্পানি দ্বারা ব্যবহৃত হয়। ক্যানন, নিকন এবং আরও অনেক কোম্পানি ডিজিটাল SLR(Single Lens Reflex)-এর জন্য CMOS ইমেজ সেন্সর ব্যবহার করে।

Comment

comments

Comments are closed.