WI FI কি?

0

WI FI হলো কাছাকাছি কোন নেটওয়ার্কের সাথে সংযোগের জন্য রেডিও signal ব্যবহারের মাধ্যমে যোগাযোগের একটি মাধ্যম। WI FI শব্দটি আসলে ওয়াই ফাই এলায়েন্স মালিকানাধীন একটি ট্রেডের নাম। সারা বিশ্বে প্রায় ৩০০ কোম্পানীর সম্মিলিত একটি গ্রুপ। তারা নিশ্চিত সব WI FI সক্রিয় ডিভাইস একে অপরের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে তুলে একসঙ্গে কাজ করে। বর্তমানে সকল ল্যাপটপেই WI FI বিল্ট-ইন থাকে।

whit-is-wif-net-worki
WI-FI কিভাবে কাজ করে:
প্রতিটি WI-FI ডিভাইস তার কাছাকাছি অবস্থিত একটি WI-FI বেস স্টেশনের নেটওয়ার্ক থেকে সিগনাল অনুসন্ধান করে। যদি নেটওয়ার্কের সিগন্যাল খুঁজে পায়, আপনি সঠিক পাসওয়ার্ড প্রদান করেই ওই নেটওয়ার্কের সাথে সংযোগ করতে পারবেন। এমন অনেক নেটওয়ার্ক আছে যেগুলো password protected নয়, ফলে আপনি সেখানে খুব সহজেই আপনার ডিভাইসকে কানেক্ট করতে পারবেন, কিন্তু সেই নেটওয়ার্ক সিকিউরড নয়। আর প্রত্যেকটি এক্সেস পয়েন্টকে ‘হট স্পট’ বলা হয়।
WI-FI বেস স্টেশনের নেটওয়ার্ক সাধারণত রাউটার/মডেমের মাধ্যমে সিগনাল দেয়। এই রাউটার টেলিফোন লাইনের মাধ্যমে সরাসরি ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত, তাই WI-FI ব্যবহার সহজেই ইন্টারনেটের কানেক্ট থাকা যায়।
কিভাবে WI-FI করতে হবে?
এর কাজের প্রক্রিয়া অনেকটা টেলিভিশনের মত। বেস স্টেশন থেকে পাওয়া রেডিও ব্যান্ডউইথ বিভিন্ন চ্যানেলে বিভক্ত থাকে। সাধারণত ১৩টি চ্যানেল থাকে। যখন কোন ডিভাইস সংযোগ স্থাপন করতে চায়, তখন বেস স্টেশন থেকে একটি চ্যানেল ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। একই চ্যানেলে একাধিক ডিভাইস ব্যবহার করা যায়, কিন্তু ধীর গতির হয়ে যায়। বেস স্টেশন এবং ওয়াই ফাই ডিভাইস উভয় একে অপরের অবশ্যই সংযোগের ক্ষেত্রে একই নিয়ম অনুসরন করে। এই পন্থাকে প্রোটোকল বলে।
WI-FI কিভাবে দ্রুত ডাটা ট্রান্সফার করে:
একটি ৮০২.১১g স্ট্যান্ডার্ডের ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কে ব্যবহার করে সেকেন্ডে সর্বোচ্চ 54 মেগাবাইট ডাটা ট্রান্সফার করে। তবে এর নিরাপত্তা ও ডাটা ট্রান্সফারের রেট নিয়েও সমস্যা আছে। আপনি রেডিও সিগনালের মাধ্যমে আপনার নেটওয়ার্কে ডাটা আদান প্রদান করছেন। অনেক রেডিও নেটওয়ার্কের সঠিক এনক্রিপশন এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সঙ্গে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়। বর্তমানে চারপাশে বিনামূল্যে প্রচুর হটস্পট থাকায় একই নেটওয়ার্ক সিগনালে অধিক গ্রাহকের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে ডাটা ট্রন্সফার রেট অনেক কমে যায়। নেটওয়ার্কে সিগনাল যত ভালই থাকুক না কেন গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে যদি ব্যান্ডউইথ এবং পর্যাপ্ত বেস স্টেশন বৃদ্ধি না করা হয় তবে ডাটা ট্রন্সফার রেট অনেক কমে যাবে।
বর্তমানে অনেক দেশ এবং শহরে সম্পূর্ণ ওয়াই ফাই কভারেজ আছে। যেমন ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিকের সময় পুরো শহরে WI-FI কভারেজের পরিকল্পনা করা হয়। বাংলাদেশেও কিছু যায়গায় ফ্রী WI-FI কভারেজ পাওয়া যায়। আগামিতে আরো বারবে ।

Comment

comments

Comments are closed.