Somoyer Golpo

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত বাংলাদেশের গর্ব

কুয়াকাটা দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র সমুদ্র সৈকত যেখানে সূর্যোদয় এবং সূর্য অস্ত দেখা যায় একি সাথে। পারবেন প্রকৃতির সাথে আপনার নিবিড় কিছু সময় কাটিয়ে দিতে, কিছু কস্ট সাগরের পানিতে ভাসিয়ে দিতে। এছাড়াও প্রকৃতির এই লীলাভূমিতে কোন কিছুর কমতি নেই রয়েছে ম্যানগ্রোভ বন, ঝাউ বন, কাঁকড়া বিচ, তিন নদীর মোহনা ও ঐতিহাসিক অনেক কিছুই, যেমন রাখাইন পল্লি এবং সেই বিক্ষ্যাত কুয়। সাগর কন্যা আপনার সবটুকু কস্ট মুছে দেবে তার অপরুপ রুপের ছটায়, তাতে কোন সন্দেহ নেই।

পুরো ভিডিওটিতে আমি এই এলাকা এবং এর আশে পাশে সব রিমোর্ট পর্যটন স্পটগুলো আপনাদের দেখানোর চেস্টা করবো, যেখানে গেলে আপনারা কিছুটা সময় নিরবে কাটাতে পারবেন।  কোলাহলমুক্ত মূল সৈকতে আপনাদের এই ভিডিওতে আর নিচ্ছি না। তবে আপনি ওখানে না গেলেও কথা দিচ্ছি কুছুই মিস করবেন না।

সূর্যোদয় দেখতে যেতে হবে ভোর ৪টার দিকে গংগামতির চর। সেখানে সূর্য়দয়ের সাথে সাথে লাল কাকরা, সমুদ্র আর খালের মোহনা অপেক্ষা করছে আপনার জন্য।  কুয়াকাটা জিরো পয়েন্ট থেকে গংগামতির চর মাত্র ১০ কিলো মিটার দূরে। মটার সাইকেল বা অটোতে যেতে পারবেন গংগামতির চরে। ষেশ রাতে অর্পব সুন্দর গ্রমিন জীবনের পাস দিয়ে চলে যাবেন সূর্য়দয় দেখতে। তারপর গংগামতির চরে ঠিক সৈকতের পার ঘেসে চলবে আপনাদের বাইক। এক পাসে সমুদ্র অন্য পাসে ম্যানগ্রোভ বন, মাঝে ছোট ছোট গাছের পাস কাটিয়ে এগিয়ে চলবেন।  বাতাসের গান, জোয়ার ভাটার গল্প আর আধো আলো কখন আপনাকে তুলাতলী খালের পারে নিয়ে যাবে বুঝতেও পারবেন না।  তবে এই খালটি পার হওয়া একটা চ্যালেন্জের বিষয় বটে, অল্প সময়ে পার হতে না পারলে অনেক কিছুই আপনার সৃকিতে ধরে রাখতে পারবেন না।  ফেরার পথে দিনের আলোয় আমরা দেখবো কি অদভুত সুন্দর হতে পার এই তুলাতলী খাল।

 

Comment

comments

What's your reaction?

Excited
0
Happy
0
In Love
0
Not Sure
0
Silly
0

Comments are closed.

Next Article:

0 %