কম্পোজিশন এর নিয়ম (ফটোগ্রাফি)

0

ছবির ফ্রেমিং এর জন্য কম্পোজিশন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বেশিরভাগ ক্যামেরাই সাধারণত সমান্তরাল ভিউতে ছবি তোলে, তাই ছবি তোলার আগে আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে, সেটি আড়াআড়ি ভাবে নাকি লম্বালম্বি ভাতে তুলবেন। যেমন- সূর্যাস্তের ছবি সমান্তরাল ভিউতে তুললে তা ভাল আসবে। যেখানে একটি গাছের ছবির ক্ষেত্রে লম্বালম্বি ভিউ ভাল।

রুল অব থার্ড
রুল অব থার্ড এমন একটি টেকনিক যা ছবি তোলার ক্ষেত্রে খুবই প্রয়োজনীয়। এটি সেট করতে হলে- ক্যামেরার সেটিংসে গিয়ে গ্রিড টুলস অন করতে হবে। অপশনটি চালু করলে আপন ছবির লাইনআপ খুব সহজেই করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে ছবির মেইন ফোকাল পয়েন্টটি লাইনের সমান্তরাল করে রাখতে হবে।

Rule of thirds

ব্যাকগ্রাউন্ড পছন্দ করা
ছবির ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক বেশি কনটেন্ট থাকলে এটি আপনার ছবির মূল ফোকাল পয়েন্টকে বিঘ্নিত করবে। অর্থাৎ আপনি ঠিক যে জায়গাটিতে ফোকাস করতে চাচ্ছেন তা করতে আপনাকে অসুবিধার সম্মুখিন হতে হবে। তাই ছবি তোলার ক্ষেত্রে একটি সাধারণ ব্যাকগ্রাউন্ড সবসময়ই ভাল। এতে আপনি পছন্দসই ছবি তুলতে পারবেন।

Simplify the background

সিন ফ্রেমিং করা
ছবি তোলা অথবা ফ্রেমিং করার ক্ষেত্রে নাটকিয়ভাবে আপনার কম্পোজিশন পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। এটি ফোকাল পয়েন্টের দিকে মনযোগি থাকে, এবং এর ফলে আপনার ছবির ভেতর এমন কিছু সিন চলে আসে যা আপনি চাচ্ছেন না। এ সমস্যার সমাধানে আপনি যা করতে পারেন তা হলো, সিম্পল ওয়েতে একটি ছবির বাইরের অংশ অথবা প্রাকৃতিক কোন দৃশ্যকে ফ্রেমিং করুন। উদাহরণ স্বরূপ- একটি গুহা অথবা গাছ। এক্ষেত্রে আপনি বাড়ির জানালাও ফ্রেমিং করতে পারেন।

Framing a scene

কম অর্থই বেশি-সিম্পল রাখুন
একটি ছবিতে যখন কোন ডমিনেন্ট অংশ থাকবে বা একটি দৃশ্যমান বস্তু থাকবে, তখন তা একজন মানুষের নজর কারবে। সেরকম করতে হলে, একটি ছবি তুলুন যেখানে একটি অথবা দুটি দৃশ্যমান বস্তু থাকবে।এটি একটি পয়েন্ট তৈরির সহজ উপায়, এবং এ পদ্ধতি অবলম্বন করলে একজন ভিউয়ারের নজর ঠিক সেদিকেই যাবে।

লাইনের ব্যবহার
ছবি তোলার ক্ষেত্রে লাইন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এটি সবসময়ই একজন ভিউয়ারের নজর কাড়ে। শুধু তাই নয় লাইনের ব্যবহারে একজন ভিউয়ারের চোখ ছবিটিতে আটকে থাকে, এতে ছবির সেগমেন্টেও সমতা আসে। এক্ষেত্রে আপনি কিছু অবজেক্ট ব্যবহার করতে পারেন, যেমন- বিদ্যুতের লাইন, ব্রিজ এবং নদী।

Using lines

কনট্রাস্ট
একটি ছবির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো এর লাইট এবং কালার। টোন এবং শেডের কনট্রাস্ট ঠিক করা একটি ছবির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে ছবির মান অনেক ভাল হয়। আপনি যদি খুব গাড় রঙের সামনে কোন হাল্কা রঙের কিছুর ছবি কনট্রাস্ট করে তোলেন, তাহলে সেটি অবশ্যই ফুটে থাকবে। আপনি টেক্সচার ও অবজেক্টে কনট্রাস্টটিং করেও ভিউয়ারের আগ্রহ জাগিয়ে তুলতে পারেন। যেমন- টেক্সচারের ক্ষেত্রে এবড়োথেবড়ো ও মসৃণ, উজ্জ্বল ও অন্ধকার, নরম ও শক্ত।

Contrast

ক্লোজ আপ
আপনি যখন কোন অবজেক্টের ক্লোজ ছবি তুলবেন তখন তা একজন ভিউয়ারের নজর কাড়বে। এটি ইমপ্যাক্ট তৈরির ক্ষেত্রে খুবই কার্যকর, শুধু তাই নয় এর ফলে একটি অবজেক্ট অনেক সময় ভিউয়ারের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকে।

Close ups

বিকল্প ভিউ পয়েন্ট
একটু ভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে ছবি তোলা হলে সেটি একটি সাধারণ ছবিকে অসাধারণ ছবিতে পরিণত করতে পারে। এটি একজন ভিউয়ারকে এমনভাবে ছবি প্রদর্শণ করে যার সঙ্গে তারা পরিচিত। তবে এটি ভিউয়ারের দেখার আঙ্গিককে পরিবর্তন করে দেয়। ছবিটিকে তারা একটু ভিন্ন ধারা থেকে দেখে থাকে।

Alternative viewpoints

গবেষণা
মনে রাখবেন এগুলো শুধুই গাইডলাইন, শুধুমাত্র এ নিয়মগুলোর মধ্যেই আপনাকে সীমাবদ্ধ থাকলে হবে না। এর মাধ্যমে আমরা বোঝাতে চেয়েছি যে, আপনি ছবি নিয়ে যেমনটি চান ঠিক তেমনই করতে পারেন। ছবি নিয়ে নানা রকমের গবেষণা করতে পারেন । বিভ্ন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে ছবি তুলে অথবা বিভিন্ন ফ্রেমে কাজ করে আপনি আপনার ছবিকে আরো বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে পারেন।
কখনও কখনও একটি ভিন্ন ধরণের ছবি তুলতে হলে আপনাকে ব্যবহার করতে হতে পারে কিছুটা ভিন্ন ইফেক্ট অথবা লেন্স। মনে রাখবেন, ছবি তোলা নির্ভর করে আপনার চিন্তা শক্তির ওপর এবং কোন ছবিটি কোন সময় ঠিক কখন তুলতে হবে তার ওপর।

লেখাটির কিছু ছবি ইন্টারনেট খেকে নেয়া

এজেডএম সালেহ আহমেদ(রুপক) ফটোগ্রাফার

সালেহ আহমেদ (রুপক)

Comment

comments

Comments are closed.